Thursday 13 February 2020

বুধ - পর্ব ২২


বুধের বায়ুমণ্ডল

বুধ গ্রহে খুবই পাতলা একটা বায়ুমন্ডল আছে। এই বায়ুমন্ডলের চাপ পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের চাপের তুলনায় নগণ্য। বুধের বায়ুমন্ডলে খুব সামান্য পরিমাণ হাইড্রোজেন, হিলিয়াম, অক্সিজেন, সোডিয়াম, পটাশিয়াম এবং আর্গন আছে। তা ছাড়া নাইট্রোজেন আয়ন, কার্বন-ডাই-অক্সাইড আয়ন, সালফার, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন, সিলিকন ও অ্যালুমিনিয়ামের আভাসও পাওয়া গেছে।
            সৌরঝড়ের ফলে অসংখ্য গ্রহাণু দিনের পর দিন আঘাত হেনেছে বুধের পিঠেবিশাল বিশাল গর্ত হয়ে গেছে বুধের সারা গায়ে। এই গ্রহাণুগুলো থেকে খুব সামান্য কিছু পরমাণু বের হয়ে বুধের এই বায়ুমন্ডল তৈরি করেছে।
            বুধের বায়ুমন্ডল তৈরি হবার প্রধান কারণ সৌরতাপ বিকিরণ। সৌর বিকিরণের প্রভাবে বুধের উপরিস্তর থেকে পরমাণুর বিক্ষেপণ ঘটে। কিন্তু সেগুলো দ্রুত চার্জ হারিয়ে চার্জ নিরপেক্ষ পরমাণুতে পরিণত হয়ে মহাকাশে অদৃশ্য হয়ে যায়।
            বুধের ক্ষীণ চুম্বকত্বের প্রভাবে যে ক্ষীণ চৌম্বকক্ষেত্র সৃষ্টি হয় তার ফলেও কিছু চার্জিত পরমাণু বুধের বায়ুমন্ডলে মুক্ত হয়।
            বুধের বায়ুমন্ডলে বিভিন্ন পরমাণু কীভাবে এসেছে তার একটা তালিকা নিচের সারণিতে দেয়া হলো।

সারণি: বুধের বায়ুমন্ডলে বিভিন্ন অণু ও পরমাণুর উৎস
উপাদান
উৎস
প্রক্রিয়া

হাইড্রোজেন, হিলিয়াম, আর্গন
সৌরঝড়, সৌর বিকিরণ, রেগোলিথ
তাপ বিকিরণ, মহাজাগতিক বিকিরণ।
জলীয় বাষ্প, সালফার
উপরিস্তর, গ্রহাণুর আঘাত, রেগোলিথের ভেতর আটকে পড়া, বুধের অভ্যন্তর থেকে বিকিরণ।
ফটো-ইলেকট্রিক ইফেক্ট, তাপ বিকিরণ, ইলেকট্রন অথবা ফোটনের উত্তেজনা।
সোডিয়াম, পটাশিয়াম
রেগোলিথ
তাপ বিকিরণ, গ্রহাণুর আঘাতের ফলে বাষ্প হয়ে উড়ে যাওয়া
ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, অ্যালুমিনিয়াম
রেগোলিথ
ফটো-ইলেকট্রিক ইফেক্ট

No comments:

Post a Comment

Latest Post

Memories of My Father - Part 6

  The habit of reading books was instilled in us from a young age, almost unknowingly. There was no specific encouragement or pressure for t...

Popular Posts