Monday 1 July 2019

আইনস্টাইনের কাল - পর্ব-১৫


১৯২০
আইনস্টাইনের মায়ের ক্যানসার ধরা পড়েছে মায়ার কাছে আছেন তিনি শেষের দিনগুলো ছেলের কাছে কাটাবার ইচ্ছা প্রকাশ করায় তাঁকে বার্লিনে আইনস্টাইন ও এলসার এপার্টমেন্টে নিয়ে আসা হয়েছে ফেব্রুয়ারি মাসে ৬২ বছর বয়সে মারা যান তিনি মায়ের মৃত্যুতে প্রচন্ড কষ্ট পেয়েছেন আইনস্টাইন মায়ের সাথে তাঁর অনেক বিষয়ে মনোমালিন্য হয়েছে, মিলেইভাকে বিয়ের ব্যাপারে ঝগড়া হয়েছে, বিয়ের পরেও মিলেইভাকে মেনে নিতে পারেননি বলেও মায়ের উপর অভিমান ছিলো আইনস্টাইনের কিন্তু আইনস্টাইন জানেন তাঁর বড় হয়ে ওঠার পেছনে মায়ের ভূমিকাই ছিলো সবচেয়ে বেশি পলিটেকনিকে ভর্তি হওয়া থেকে শুরু করে সবকিছুতেই মা জোরালো ভূমিকা রেখেছেন আইনস্টাইনের সাফল্যে সবচেয়ে বেশি খুশি হয়েছেন মা মায়ের জন্য খুবই খারাপ লাগছে তাঁর
বার্লিনে ইহুদি বিদ্বেষ প্রবল আকার ধারণ করছে সংবাদপত্রগুলো উঠতি সেলিব্রিটি আইনস্টাইনকে ইহুদি বলে নিয়মিতভাবে আক্রমণ করে প্রবন্ধ ছাপছে আইনস্টাইনের রিলেটিভিটি তত্ত্বকে ইহুদি তত্ত্ব প্রমাণ করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে জার্মানির কিছু মানুষ তাদের সাথে যোগ দিয়েছেন নোবেল পুরষ্কার প্রাপ্ত পদার্থবিজ্ঞানী ফিলিপ লেনার্ড ও জোহানেস স্টার্ক তাঁরা বিজ্ঞানকেও সাম্প্রদায়িকভাবে বিভক্ত করে আইনস্টাইনের বিজ্ঞানকে ইহুদি বিজ্ঞান নাম দিলেন প্রচার করতে লাগলেন ইহুদিদের মত ইহুদিবিজ্ঞানও পরিত্যাজ্য, ঘৃণ্য

আইনস্টাইন এসব প্রচারণায় কান না দিয়ে যুদ্ধোত্তর জার্মানির পুনর্গঠনের কাজে যোগ দিলেন বার্লিনে হাজার হাজার শিশু মারা যাচ্ছে ক্ষুধা আর অপুষ্টির শিকার হয়ে আইনস্টাইন বার্লিনে ঘুরে ঘুরে দেখলেন আমেরিকান ও ব্রিটিশ দাতব্য সংস্থা গুলোর কার্যক্রম তিনি ধন্যবাদ জানালেন দাতা সংস্থাগুলোকে

হল্যান্ডে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে বেশ কিছু লেকচার দেবার পর আইনস্টাইন গেলেন নরওয়ে সেখান থেকে ডেনমার্ক ডেনমার্কে তিনি নিলস বোরের সাথে দেখা করলেন এর আগে ফেব্রুয়ারি মাসে নিলস বোর বার্লিনে এসেছিলেন তখন পরিচয় হয়েছে তাঁদের

এবছর আমেরিকান মেয়েরা ভোট দেবার অধিকার লাভ করেন জার্মানির অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার লক্ষ্যে অ্যাডলফ হিটলার পঁচিশ-দফা-প্রকল্পের কথা ঘোষণা করলেন জার্মান ওয়ার্কার্স পার্টির নতুন নাম হলো ন্যাশনাল সোসালিস্ট জার্মান ওয়ার্কার্স- সংক্ষেপে নাৎসি (Nazi)পার্টি নাৎসি পার্টির কাজকর্ম শুরু থেকেই ভয়ানক উগ্র

কাইম ওয়াইজম্যান (Chaim Weizmann) ওয়ার্লড জিওনিস্ট অর্গানাইজেশানের প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন আইনস্টাইন ব্যক্তিগত ভাবে চেনেন পোল্যান্ডে জন্মগ্রহণকারী এই জিওনিস্ট কর্মীকে পরে ১৯৪৮ সালে ওয়াইজম্যান ইসরায়েলের প্রথম প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন

প্রকাশনা
এবছর প্রকাশিত আইনস্টাইনের নয়টি উল্লেখযোগ্য প্রকাশনাঃ

পেপারঃ৮৪ Uproar in the Lecture Hall.8-Uhr Abendblaatt,১৩ ফেব্রুয়ারি,১৯২০ বার্লিন ইউনিভার্সিটিতে আইনস্টাইনের ক্লাসে যে কেউ এসে বসে ক্লাস করতে পারতো তাঁর বিষয়টি কে নিয়েছে, কে নেয়নি আইনস্টাইন তা কখনো দেখতেন না এমনকি ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হয়নি এমন অনেকেও আইনস্টাইনের ক্লাসে গিয়ে বসতো ফলে অনেক সময় দেখা যেতো তাঁর ক্লাসে জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না একদিন স্টুডেন্ট কাউন্সিলের নেতারা আইনস্টাইনকে ক্লাস নেবার সময় বাধা দিলো তাদের দাবী হচ্ছে যারা পয়সা দিয়ে পড়তে এসেছে তারা ছাড়া আর কেউ ক্লাসে থাকতে পারবে না কেউ কেউ মনে করেন এটি করা হয়েছে এন্টি-সেমিটিজম থেকে আইনস্টাইনের ক্লাসে পূর্ব-ইউরোপ থেকে আসা অনেক ইহুদি ছেলে এসে ক্লাস করতো আইনস্টাইনের ক্লাসে বাধা দেয়ার ঘটনাটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয় ১৩ ফেব্রুয়ারি এরপর বেশ কিছুদিন ধরে উত্তেজনা চলতে থাকে আইনস্টাইন বাধ্য হয়ে ঘোষণা করেন যে এখন থেকে তাঁর ক্লাসে যারা ভর্তি হয়েছে তারা সবাই বসার পরে জায়গা থাকলে অন্যরা বসতে পারবে মাঝে মাঝে সব সিট ভরে যেতো যারা ভর্তি হয়নি-তাদের জন্য আইনস্টাইন মাঝে মাঝে ইউনিভার্সিটির বাইরে রাতের বেলা লেকচার দিতেন যুদ্ধের পর জার্মানিতে এন্টি-সেমিটিজম বেড়েই চলেছে আইনস্টাইন এসময় ইহুদিদের সমস্যা নিয়ে আরো দুটো প্রবন্ধ লিখেছিলেন কিন্তু তা প্রকাশিত হয়নি

পেপারঃ৮৫ A Confession.Israelitisches Wochenblatt fur die Schwiez পত্রিকায় আইনস্টাইনের বিবৃতি উদ্বৃত করে প্রবন্ধটি প্রকাশিত হয় ২৪ সেপ্টেম্বর,১৯২০ এন্টি-সিমেটিজমের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার লক্ষ্যে সিমেটিক একাডেমিকদের মধ্যে একটি সভার আয়োজন করা হয়েছিলো আইনস্টাইনকে সে সভায় উপস্থিত থাকতে অনুরোধ করা হলে আইনস্টাইন তা সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেন তিনি মনে করেন এধরণের সাম্প্রদায়িক সংগঠনের কোন প্রয়োজন নেই আইনস্টাইন সংবাদপত্রে একটি বিবৃতি দেন এ প্রসঙ্গে সে বিবৃতিটি প্রকাশিত হয় সেপ্টেম্বরের ২৪ তারিখে আইনস্টাইন বলেন, ইহুদিদের উচিত নিজেদের মধ্যে আগে সিমেটিজমের চর্চা করা পূর্ব-ইউরোপ থেকে আসা ইহুদিদের পশ্চিম-ইউরোপের ইহুদিরা পছন্দ করেন না পরস্পর পছন্দ করতে না পারলেই একে অপরকে এন্টি-সিমেটিক বলে অপবাদ দেয় নিজেদের ভেতর থেকে বিভেদ দূর করতে না পারলে অন্যদের ভেতর থেকে বিভেদ দূর করার জন্য সংগঠন করে কোন লাভ হবেনা আইনস্টাইন অ-ইহুদিদের ইহুদি বিদ্বেষ নিয়ে যতটুকু বিচলিত ছিলেন তার চেয়েও বেশি বিচলিত ছিলেন ইহুদিদের অ-ইহুদি বিদ্বেষ নিয়ে ইহুদিরা বহুবছর ধরে শুধুমাত্র নিজেদের মধ্যে সঙ্গবদ্ধভাবে বাস করতে করতে অ-ইহুদিদের সংস্পর্শে এলেই মানসিক ভাবে দুর্বল বোধ করে বিবৃতিতে আইনস্টাইন উল্লেখ করেন, ইহুদিরা অ-ইহুদিদের সংস্পর্শে এলেই মানসিক ভাবে এন্টি-সিমেটিজম অনুভব করতে পারেন তাতে সমস্যা কী? আমি নিজে ইহুদি ইহুদিদের সাথে থাকতে আমারও ভালো লাগে কিন্তু তাই বলে আমি তো মনে করিনা যে ইহুদি হওয়ার কারণে আমাকে ছোট করে দেখা হচ্ছে

পেপারঃ ৮৬ Ether and the Theory of Relativity. প্রকাশকঃস্প্রিঙ্গার(Springer), বার্লিন (১৯২০) লিডেন ইউনিভার্সিটিতে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে আইনস্টাইন যে লেকচারগুলো দিয়েছিলেন তা বই আকারে প্রকাশ করে বার্লিনের স্প্রিঙ্গার কোম্পানি ইথারের ধারণার বর্তমান অবস্থা ও মহাকাশ সম্পর্কে আইনস্টাইনের ধারণাগুলোর বিস্তারিত প্রকাশ ঘটেছে এ লেকচার সিরিজে
পেপারঃ ৮৭ Propagation of Sound in Partly Dissociated Gases. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin). Sitzungsberichte (1920),পৃষ্ঠাঃ৩৮০-৩৮৫ প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের মিটিং এ উপস্থাপিত এ পেপারে আইনস্টাইন গ্যাসের ভেতর দিয়ে শব্দ প্রবাহিত হবার পর্যায়ক্রমিক বিশ্লেষণ করেন

পেপারঃ৮৮ To the General Association for Popular Technical Education Neue Freie Presse, morning edition, ২৪ জুলাই,১৯২০ আইনস্টাইন ছাত্রছাত্রী ও সাধারণ মানুষের জন্য দৈনন্দিন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ব্যবহারিক প্রয়োগ দেখানোর প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি মনে করেন প্রয়োজনীয় বিজ্ঞান ও কারিগরীজ্ঞান অর্জন মানবিক গুণাবলী অর্জনের মতোই প্রয়োজনীয়

পেপারঃ৮৯ On the Sources of Energy. Berlin Tageblatt, morning edition, ২৫ জুলাই,১৯২০ প্রথম বিশ্বযুদ্ধ বিজয়ী দেশ হিসেবে ফ্রান্স পরাজিত জার্মানির কাছে ক্ষতিপূরণ হিসেবে জ্বালানী কয়লা দাবী করে আসছে কিছুদিন থেকে সাংবাদিকরা জার্মানির জ্বালানী সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে আইনস্টাইনের মত জানতে চাইলে আইনস্টাইন বলেন পারমাণবিক শক্তি একটি বিরাট সম্ভাবনাময় শক্তির উৎস হয়ে ওঠতে পারে তবে তাঁর কাছে এসম্পর্কিত কোন বৈজ্ঞানিক ডাটা এখনো নেই

পেপারঃ৯০ My Response. On the Anti-Relativity Company.Berliner Tageblatt,morning edition,২৭ আগষ্ট,১৯২০ গত দুবছর ধরে আইনস্টাইন ও তাঁর রিলেটিভিটি থিওরির ওপর বিরূপ সমালোচনা চলছে জার্মানির বিভিন্ন সংবাদপত্রে আইনস্টাইন যথাসম্ভব প্রতিবাদ করেন সেগুলোর আগস্টের ২৪ তারিখে বার্লিনের ফিলহারমোনিক হলে আইনস্টাইন রিলেটিভিটির ওপর একটি লেকচার দেন সেখানে তাঁর সমালোচকরা কোন ধরণের বৈজ্ঞানিক যুক্তি ছাড়াই ব্যক্তিগত আক্রমণ করেন আইনস্টাইনকে তাঁরা বলেন আইনস্টাইন অন্যের ধারণা চুরি করে নিজের নামে চালাচ্ছেন, প্রেসকে ঘুষ দিয়ে নিজের পক্ষে কাজ করাচ্ছেন, আইনস্টাইনের বিজ্ঞান জার্মান সংস্কৃতির পরিপন্থী, আইনস্টাইন জার্মানির শত্রু হলের বাইরে আইনস্টাইন বিরোধীরা এন্টি-সিমেটিক লিফলেট বিলি করে, নাৎসি বাহিনীর স্বস্তিকা চিহ্নিত কোটপিন বিক্রি করে আইনস্টাইন তাঁদের এরকম অবৈজ্ঞানিক অন্যায্য আক্রমণের তীব্র প্রতিবাদ জানান তাঁর এই প্রবন্ধে এর একমাস পর আরেকটি লেকচার দেবার সময় আইনস্টাইনকে নোংরা গালিগালাজ করে বাধা দেয়া হয় আইনস্টাইন সাথে সাথে প্রতিবাদ করেন এসব ঘটনার পর জার্মানির পদার্থবিজ্ঞানীরা দুভাগে বিভক্ত হয়ে যান আইনস্টাইনকে সমর্থন করেন যাঁরা ও তাঁর বিরোধীতা করেন যাঁরা আইনস্টাইনের সমর্থকরা ভয় পাচ্ছেন এই ভেবে যে, এভাবে চলতে থাকলে যে কোনদিন আইনস্টাইনকে হত্যা করা হতে পারে বা জার্মানি থেকে বের করে দেয়া হতে পারে

পেপারঃ৯১ On the Contribution of Intellectuals to International Reconciliation. Thoughts on Reconciliation,Deutscher Gesellig-Wissenschaftlicher Verein, নিউইয়র্ক,(১৯২০) নিউইয়র্কের জার্মান সোশাল এন্ড সায়েন্টিফিক সোসাইটির পঞ্চাশতম বার্ষিকী উপলক্ষে প্রকাশিত সংকলনে আইনস্টাইনের এ প্রবন্ধ প্রকাশিত হয় এ সংকলন বিক্রির টাকায় জার্মানি ও অস্ট্রিয়ার দরিদ্র বুদ্ধিজীবীদের সাহায্য করা হয়

পেপারঃ৯২ Interview on Interplanetary Communication. ডেইলি মেইল (লন্ডন), ৩১ জানুয়ারি ১৯২০ পরে আইনস্টাইনের উদ্বৃতি সহ নিউইয়র্ক টাইমস, ২ ফেব্রুয়ারি ১৯২০ বছরের শুরুর দিকে লন্ডন ও নিউ ইয়র্কে কিছু রহস্যময় ওয়্যারলেস সিগনাল ভেসে আসেএগুলো কোত্থেকে আসতে পারে কোন ধারণা করতে পারলো না বিজ্ঞানীরা লন্ডনের ডেইলি মেইলের এক সাংবাদিক আইনস্টাইনকে অনুরোধ করলেন এ ব্যাপারে তাঁর মন্তব্য করতে আইনস্টাইন বললেন, মঙ্গল বা অন্যকোন গ্রহে প্রাণীর অস্তিত্ব থাকতেও পারে যদি তারা কোন সিগনাল পাঠায় তবে তা আলোক তরঙ্গ আকারে পাঠানোর সম্ভাবনাই বেশি ওয়্যারলেস সিগনাল অন্যগ্রহ থেকে আসার সম্ভাবনা নেই বললেও চলে আইনস্টাইন মনে করেন পৃথিবীর আবহাওয়ার কারণে এরকম সিগনাল তৈরি হতে পারে, বা পৃথিবীর কোন গোপন ল্যাবরেটরি থেকেও এরকম সিগনাল তৈরি হয়ে থাকতে পারে

১৯২১
এবছর এপ্রিলে আইনস্টাইন প্রথম আমেরিকা সফর করেন এ সফরের দুটো প্রাথমিক উদ্দেশ্যের প্রথমটি হলো জেরুজালেমের হিব্রু ইউনিভার্সিটির জন্য তহবিল সংগ্রহআর দ্বিতীয় উদ্দেশ্য হলো প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটিতে রিলেটিভিটি থিওরির ওপর চারটি লেকচার দেয়া প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির লেকচারগুলো দেয়ার পেছনে তাঁর ব্যক্তিগত অর্থনৈতিক একটি ব্যাপার ছিলো বার্লিনে আইনস্টাইনের দায়িত্ব বাড়ার সাথে সাথে খরচও খুব বেড়ে গেছে মিলেইভাকে ডির্ভোস দেয়ার পর ছেলেদের ভরণপোষণ বাবদ টাকা দিতে হচ্ছে আইনস্টাইনকে তাছাড়া জার্মানির অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ থেকে খারাপ হচ্ছে দিনের পর দিন গবেষণার জন্য পর্যাপ্ত ফান্ড পাওয়া যাচ্ছে না আর আইনস্টাইন তাই বাইরের কোন উৎস থেকে কিছু ফান্ডের চেষ্টায় ছিলেন তাই প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির আমন্ত্রণ পাবার সাথে সাথে রাজী হয়ে গেছেন আইনস্টাইন আমেরিকা আসার সময় এলসাকে সাথে নিয়ে এসেছেন তিনি কারণ তার শরীর দুর্বল, এলসা সাথে থাকলে তাঁর দেখাশোনা করতে পারবেন জিওনিস্ট ও হিব্রু ইউনিভার্সিটির পক্ষে আইনস্টাইনের সফরসঙ্গী হিসেবে সাথে ছিলেন ওয়ালর্ড জিওনিস্ট অর্গানাইজেশনের প্রেসিডেন্ট কাইম ওয়েইজম্যান
নিউইয়র্কে পৌঁছেই খুব জনপ্রিয় হয়ে গেলেন আইনস্টাইনসাংবাদিকদের সাথে খুব হাসি তামাশা করলেন তিনি নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলের একজন কর্মকর্তা খোলা মোটরগাড়িতে চড়িয়ে আইনস্টাইনকে নিউইয়র্ক শহর ঘুরিয়ে দেখালেন আইনস্টাইন সম্পর্কে যারা কিছুটা পরিচিত তাঁরা ফুটপাতে ভিড় করলো আইনস্টাইনকে একনজর দেখার জন্য এপ্রিলে কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি ও সিটি ইউনিভার্সিটি অব নিউইয়র্কের অডিটোরিয়ামে বক্তৃতা দিলেন আইনস্টাইন নিউজার্সির প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটিতে যাবার আগে আইনস্টাইন ওয়াশিংটন ডিসিতে ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্সে একটি বক্তৃতা দিলেন আমেরিকান প্রেসিডেন্ট ওয়ারেন হার্ডিং এর সাথে দেখা করার জন্য হোয়াইট হাউজে গেলেন আইনস্টাইন ওয়াশিংটন ডিসিতে আইনস্টাইনকে অনেকটা শীতল অভ্যর্থনা জানানো হলো কারণ আমেরিকান কর্তাদের সাথে জার্মান সরকারের সম্পর্ক এখনো খারাপ ওয়াশিংটনের কর্তাদের কাছে আইনস্টাইনের পরিচয় শুধুই একজন জার্মান

প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটি আইনস্টাইনকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি প্রদান করলো চারদিনে চারটি লেকচার দিলেন আইনস্টাইন পরের বছর এই লেকচার গুলোর একটি সংকলন প্রকাশিত হয়েছে ইংল্যান্ড ও আমেরিকা থেকে আলাদা আলাদা ভাবে হিব্রু ইউনিভার্সিটি ও জিওনিস্ট আন্দোলনের জন্য তহবিল সংগ্রহে খুব একটা সাফল্য আসেনি কিন্তু আইনস্টাইনের ইহুদি পরিচয়টা পাকা হয়ে গেলো এ সফরে

জার্মানিতে ফিরে আসার পথে ইংল্যান্ডে যাত্রাবিরতি করলেন আইনস্টাইন ও এলসা ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের কিংস কলেজ ও ম্যাঞ্চেস্টার ইউনিভার্সিটিতে বক্তৃতা দিলেন আইনস্টাইন নিউটনের সমাধি পরিদর্শন করে ফুল দিয়ে এলেন আইনস্টাইন

বার্লিনে ফিরে আসার পর আইনস্টাইন পদার্থবিজ্ঞানী ও উদ্ভাবক লিও শিলার্ডের (Leo Szilard)সাথে পরিচিত হলেন পরের বছরগুলোতে লিও শিলার্ড আইনস্টাইনের একজন সহযোগী বিজ্ঞানী হিসেবে কাজ করেন এই লিও শিলার্ডের পরামর্শে আইনস্টাইন আমেরিকান প্রেসিডেন্ট রুজভেল্টকে চিঠি লিখেছিলেন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়
জার্মানিতে হিটলারের নাৎসি বাহিনীর অত্যাচার ক্রমশ বাড়ছে তারা যখন তখন শারীরিক আক্রমণ করছে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে জার্মান অর্থনীতি প্রায় ধ্বংসের মুখে

প্রকাশনা
এবছর প্রকাশিত আইনস্টাইনের ১৩টি উল্লেখযোগ্য রচনাঃ

পেপারঃ৯৩ Einstein on Education. Nation and Athenaeum , সংখ্যা ৩০(১৯২১), পৃষ্ঠাঃ৩৭৮-৩৭৯ গণিত ও বিজ্ঞান শিক্ষা বিষয়ে আইনস্টাইনের সাক্ষাৎকারের ওপর ভিত্তি করে এ পেপারটি লিখিত হয়েছে আইনস্টাইন মনে করেন বর্তমান শিক্ষাপদ্ধতির বেশির ভাগই অবাস্তব বা পরাবাস্তব ধারণার ওপর ভিত্তি করে তৈরি তিনি মনে করেন শিক্ষা হওয়া উচিত বাস্তবভিত্তিক আইনস্টাইনের মতে স্কুলে ছাত্রছাত্রীদের মূল্যায়নের জন্য বার্ষিক পরীক্ষার কোন দরকার নেই আর স্কুলের পাঠদানের সময় কিছুতেই দিনে ছয়ঘন্টার বেশি হওয়া উচিত নয়

পেপারঃ৯৪ The Common Element in Artistic and Scientific Experience. Menschen Zeitschrift neuer Kunst, সংখ্যা ৪ (১৯২১), পৃষ্ঠাঃ১৯ এই সংক্ষিপ্ত প্রতিবেদনে আইনস্টাইন বিজ্ঞান ও শিল্পকলার মধ্যে অনেক মিল খুঁজে পান বিজ্ঞান ও কলা উভয়েই সৃষ্টিশীল বিজ্ঞান যুক্তিনির্ভর আর কলা কাঠামো নির্ভর বিজ্ঞানচর্চা বা শিল্পকলার চর্চা মানুষের ব্যক্তিগত দুঃখ ভুলিয়ে দিতে পারে

পেপারঃ৯৫ Geometry and Experience, প্রকাশকঃস্প্রিংগার, বার্লিন(১৯২১) পরের বছর এর ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশিত হয় Sidelights of Relativity-তেপ্রকাশকঃ Methuen, লন্ডন(১৯২২) প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের বিশেষ অধিবেশনে আইনস্টাইন গণিতের উৎকর্ষ ও আনন্দ বিষয়ে এ প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন তাঁর আপেক্ষিকতার তত্ত্বে ব্যবহৃত জ্যামিতি ও দৈনন্দিন গণিতের পারস্পরিক সম্পর্ক নিয়েও আলোচনা করেন তিনি আইনস্টাইন প্রশ্ন করেন, বাস্তব অভিজ্ঞতা ছাড়া শুধুমাত্র চিন্তাভাবনা করেই কোনকিছু পুরোপুরি বুঝে ফেলা সম্ভব কিনা বহির্বিশ্ব তো আমরা সাধারণত দেখিনা আইনস্টাইনের জেনারেল থিওরি অব রিলেটিভিটি যেখানে প্রযোজ্য সে জগতও সাধারণের কাছে অচেনা সে অচেনা জগতের জ্যামিতি কীভাবে এত পরিষ্কার করে এঁকে ফেলা সম্ভব হলো? আইনস্টাইন এ প্রশ্নের জবাব দেন এভাবে, যতক্ষণ পর্যন্ত গণিতের সূত্রগুলো বাস্তব জগতের নিয়ম মেনে চলে ততক্ষণ পর্যন্ত তারা সুনির্দিষ্ট নয়, আবার যখন গণিত সুনির্দিষ্ট হয়ে যায়, তখন তারা বাস্তবতা নির্দেশ করে না

পেপারঃ৯৬ A Brief Outline of the Development of the Theory of Relativity, নেচার (Nature),সংখ্যা ১০৬ (১৯২০-২১), পৃষ্ঠাঃ৭৮২-৭৮৪ প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর আন্তর্জাতিক পদার্থবিজ্ঞানীদের মধ্যে সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে নেচার পত্রিকার একটি বিশেষ রিলেটিভিটি সংখ্যায় আইনস্টাইন ও ইউরোপের অন্যান্য বিজ্ঞানীরা রিলেটিভিটি সংখ্যায় আইনস্টাইন ও ইউরোপের অন্যান্য বিজ্ঞানীরা রিলেটিভিটি তত্ত্বের ফলাফল ও সমস্যা নিয়ে কয়েকটি প্রবন্ধ লেখেন জার্মান ভাষায় লেখা আইনস্টাইনের প্রবন্ধটি ইংরেজিতে অনুবাদ করেন রবার্ট লসন (Robert Lawson). এ প্রবন্ধে আইনস্টাইন আপেক্ষিকতা তত্ত্বের ধারণা কীভাবে এলো তার ধারাবাহিক বর্ণনা দেন
পেপারঃ৯৭ On a Natural Addition to the Foundation of the General Theory of Relativity. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin).Sitzungsberichte (১৯২১), পৃষ্ঠাঃ২৬১-২৬৪ প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের অধিবেশনে এ পেপারটি উপস্থাপন করেন আইনস্টাইন জেনারেল থিওরি অব রিলেটিভিটির মৌলিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে এ গবেষণাপত্রে

পেপারঃ৯৮ In My Defense. Die Naturwissenschaften, সংখ্যা ৯(১৯২১), পৃষ্ঠাঃ২১৯ ফ্রান্সের ইঞ্জিনিয়ার, কবি ও উপন্যাসিক লুসিয়েন ফ্যাবর (Lucien Fabre)রিলেটিভিটি বিষয়ে একটি প্রবন্ধে আইনস্টাইনকে খুব নোংরা ভাষায় আক্রমণ করেন ফ্যাবর দাবী করেন যে, রিলেটিভিটি থিওরি আসলে হেনরি পয়েনকেয়ারের আবিষ্কার আইনস্টাইন তা চুরি করে নিজের নামে চালাচ্ছেন আইনস্টাইন ফ্যাবরের এ নোংরামির প্রতিবাদে এ প্রবন্ধটি লেখেনফ্যাবর ছিলেন অত্যন্ত ইহুদি-বিদ্বেষী প্রতিক্রিয়াশীল

পেপারঃ৯৯ A Simple Application of the Newtonian Law of Gravitation to Globular Star Clusters. In Festschrift der Kaiser-Wilhelm Gesellschaft zur Forderung der Wissenschaften zu ihrem zehnjahrigen Jubilaum পৃষ্ঠাঃ৫০-৫২ প্রকাশকঃস্প্রিঙ্গার, বার্লিন (১৯২১)বার্লিনের কেইজার উইলহেলম সোসাইটির দশ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রকাশিত স্মারকগ্রন্থে আইনস্টাইন এ প্রবন্ধ লেখেন গোলকাকৃতি তারকাপুঞ্জের ওপর নিউটনের মাধ্যাকর্ষণসূত্রের সাধারণ প্রয়োগ সম্পর্কিত কয়েকটি সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে এ প্রবন্ধে

পেপারঃ১০০ How I Became a Zionist. Judische Rundschau, ২১ জুন ১৯২১ পৃষ্ঠাঃ৩৫১-৩৫২ ইহুদিদের একটি ম্যাগাজিনের সম্পাদকের সাথে আইনস্টাইনের এই সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হয় আইনস্টাইন বলেন, এন্টি-সিমেটিজমের সৃষ্টি করেছেন বুদ্ধিজীবীরা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য সমাজের উঁচুশ্রেণীর মানুষ এই এন্টি-সিমেটিক মনোভাব তৈরি করেছে এই শ্রেণীর মানুষ আসলে নিজেদের চেয়ে ভিন্ন চিন্তার কোন মানুষ সহ্য করতে পারেনা আইনস্টাইন বলেন, ইহুদি হলেও নিজেকে অন্যমানুষের চেয়ে আলাদা মনে হয়না তাঁর

পেপারঃ১০১ On a Jewish Palestine. Judische Rundschau, ১ জুলাই ১৯২১, পৃষ্ঠাঃ৩৭১ ইহুদিদের জন্য প্যালেস্টাইনে আলাদা স্বাধীন রাষ্ট্র গড়ার উদ্যোগের সমর্থনে আইনস্টাইন ২৭ জুন বার্লিনে একটি ভাষণ দেন জুলাই মাসে সে ভাষণটি প্রকাশিত হয় আইনস্টাইন মনে করেন, ইহুদিদের এক জায়গায় বসতি গড়ার চেয়েও স্বাধীন রাষ্ট্র গঠনের জন্য বেশি জরুরী হচ্ছে ইহুদিদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ধরে রাখা পৃথিবীর সব ইহুদিরা একটি মাত্র রাষ্ট্রে সীমাবদ্ধ থাকবে- আইনস্টাইন তা পছন্দ করেন না তিনি মনে করেন সেরকম হলে বাকী পৃথিবী জানতেই পারবে না যে ইহুদি নামে একটি জাতি আছে জার্মান ইহুদিদের চেয়ে আমেরিকান ইহুদিরা ইহুদিদের উন্নতির জন্য অনেক বেশি ভালো কাজ করছেন বলে তিনি মনে করেন

পেপারঃ১০২ Einsteins Impression on America;What He Really Saw. Vossische Zeitung, morning edition,১০ জুলাই ১৯২১ আমেরিকা ভ্রমণ শেষে বার্লিনে ফিরে আইনস্টাইন আমেরিকান সংস্কৃতি সম্পর্কে কিছু মন্তব্য করেন মন্তব্যগুলো প্রচারমাধ্যমের প্রচারিত হওয়ার পরে আমেরিকার জনগণের মধ্যে কিছুটা বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয় আইনস্টাইন আমেরিকার নারীপুরুষের সম্পর্ক বিষয়ে বলেছেন, আমেরিকার পুরুষরা হলো তাদের স্ত্রীদের পোষা কুকুর আইনস্টাইনের এ মন্তব্য অনেক বির্তকের জন্ম দেয় পরে আইনস্টাইন পত্রিকায় এ প্রবন্ধ লিখে আত্মপক্ষ সমর্থন করেন প্রবন্ধে আইনস্টাইন বলেন যে তাঁর মন্তব্য বিকৃত বলে প্রচার করা হয়েছে তিনি বলেন আমেরিকানরা খুব উষ্ণ বন্ধুবৎসল জাতি, আমেরিকান শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের মধ্যে সম্পর্ক খুব খোলামেলা ও বন্ধুত্বপূর্ণ তিনি আরো বলেন, আমেরিকানদের দেশপ্রেম জার্মানদের মত উগ্র জাতীয়তাবাদী নয় তিনি অবশ্য আমেরিকান পুরুষদের পোষা কুকুরের সাথে তুলনা করেছেন কি করেননি সে প্রসঙ্গে পরিষ্কার করে কিছুই উল্লেখ করেননি এ প্রবন্ধে

পেপারঃ১০৩ On the Founding of the Hebrew University of Jerusalem. Judische Pressezentrale Zurich, ২৬ আগস্ট ১৯২১ এ প্রবন্ধে আইনস্টাইন একটি স্বাধীন ইহুদি রাষ্ট্রের জন্য একটি ইহুদি ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠার গুরুত্ব আলোচনা করেন তিনি বিজ্ঞান ও স্বাস্থ্যবিজ্ঞান সম্পর্কিত শিক্ষা ও গবেষণার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেন তিনি বলেন, একটি স্বাধীন ইহুদি রাষ্ট্রে এ ধরণের একটি বিশ্ববিদ্যালয় অবশ্যই দরকার আছে দেশের ইহুদিদের জন্য তো বটেই, অন্যান্য জায়গার ইহুদিদের জন্যও দরকারী, বিশেষ করে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যখন ইহুদিদের পড়াশোনা ও কাজ করার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে আইনস্টাইন মনে করেন, জ্ঞানবিজ্ঞানে ইহুদিরা উন্নতিলাভ করলে ভবিষ্যতে তাদের আর পরিচয় গোপন করে কাজ করতে হবে না

পেপারঃ১০৪ On an Experiment Concerning the Elementary Process of Light Emission. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin), Sitzungsberichte (1921),পৃষ্ঠাঃ৮৮২-৮৮৩ প্রুশিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের অধিবেশনে উপস্থাপিত এই গবেষণাপত্রে আইনস্টাইন আলোক নির্গমনের প্রাথমিক পদ্ধতি নিরূপণের জন্য একটি পরীক্ষার বর্ণনা দেন

পেপারঃ১০৫ The Plight of German Science: A Danger for the Nation. Neue Freie Press, morning edition, ২৫ ডিসেম্বর ১৯২১ জার্মানি ও অস্ট্রিয়ার মধ্যে বৈজ্ঞানিক গবেষণা সহযোগিতা বাড়ানোর লক্ষ্যে আইনস্টাইন এ বিবৃতি দেন

No comments:

Post a Comment

Latest Post

The World of Einstein - Part 2

  ** On March 14, 1955, Einstein celebrated his seventy-sixth birthday. His friends wanted to organize a grand celebration, but Einstein was...

Popular Posts