Monday 1 July 2019

আইনস্টাইনের কাল - পর্ব-১৭


১৯২৫
১৯২২ সালে দক্ষিণ আমেরিকা সফল করার আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন আইনস্টাইন কিন্তু তখন যেতে পারেননি সেখানেএবছর আবার যখন দক্ষিণ আমেরিকা সফরের আমন্ত্রণ এলো, আইনস্টাইন আর না করলেন না তিনি আর্জেন্টিনা,উরুগুয়ে আর ব্রাজিল সফর করলেন সেদেশের বিজ্ঞানীরা ও স্থানীয় জার্মান কমিউনিটি বিপুল সম্বর্ধনা দেয় আইনস্টাইনকে

এবছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাধ্যতামূলক মিলিটারি সার্ভিসের বিরুদ্ধে মহাত্মা গান্ধী একটি শান্তিবাদী বিবৃতি দেন সেখানে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর,এইচ জি ওয়েলস, বার্ট্রান্ড রাসেল সহ আরো অনেকের সাথে আইনস্টাইনও স্বাক্ষর করেন
সেপ্টেম্বরে জেরুজালেমে নতুন প্রতিষ্ঠিত হিব্রু ইউনিভার্সিটির গর্ভনিং বোর্ডের মেম্বার মনোনীত হন আইনস্টাইন কিন্তু গর্ভনিং মিটিং এ গিয়ে অন্যান্য সদস্যদের কার্যকলাপ ও মনোভাব দেখে খুব হতাশ হয়ে পড়লেন আইনস্টাইন আইনস্টাইন ছাড়া বোর্ডের বাকী সবাই আমেরিকান ইহুদি তাঁরা প্রচুর টাকা দিয়ে ইউনিভার্সিটির ফান্ড গড়ে তুলেছেন বলে মনে করছেন ইউনিভার্সিটির সিলেবাস তৈরি করা থেকে সবকিছু তাঁরাই করবেন আইনস্টাইন ভেবেছিলেন ইউনিভার্সিটিটি হবে প্রকৃত জ্ঞানবিজ্ঞান চর্চা ও গবেষণার উপযুক্ত প্রতিষ্ঠান কিন্তু আমেরিকান ইহুদিরা চাচ্ছেন একটি বড়মাপের টিচিং ইনস্টিটিউট গড়ে তুলতে যেখানে তাঁদের পছন্দের লোককে চাকরি দেয়া যাবে

তত্ত্বীয় পদার্থবিজ্ঞানের গবেষণায় অনেক পরিবর্তন ঘটেছে আইনস্টাইন এখন মূল স্রোত থেকে কিছুটা দূরে সরে গেছেন তিনি তাঁর সমন্বিত ক্ষেত্রতত্ত্ব নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন যেটুকু সময় ও সুযোগ পাচ্ছেন এবছর লন্ডনের রয়েল সোসাইটি আইনস্টাইনকে তাঁদের সর্বোচ্চ সম্মান কোপলি (Copley)মেডেল দিয়ে তাঁর গবেষণার স্বীকৃতি দেন
জার্মানির রাজনৈতিক আবহাওয়া দ্রুত বদলে যাচ্ছে পল ভন হাইনডারবুর্গ (Paul von Hinderburg)জার্মানির প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন আর হ্যান্স লুথার হয়েছেন (Hans Luther)চ্যান্সেলর হিটলার তাঁর আমার সংগ্রাম- এর প্রথম খন্ড প্রকাশ করেছেন নাৎসি পার্টিকে পুনর্গঠিত করতে শুরু করেছেন হিটলার

প্রকাশনা
এবছর প্রকাশিত আইনস্টাইনের উল্লেখযোগ্য পাঁচটি রচনাঃ

পেপারঃ১২৭ Mission of Our University. New Palestine, সংখ্যা ৮(১৯২৫), পৃষ্ঠাঃ২৯৪ জেরুজালেমের হিব্রু ইউনিভার্সিটির নব নিযুক্ত গর্ভনিং বোর্ডের মেম্বার হিসেবে আইনস্টাইন ইউনিভার্সিটির উদ্দেশ্য কী রকম হবে সে ব্যাপারে তাঁর মত ব্যক্ত করেন এই ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠার জন্য আইনস্টাইন তহবিল সংগ্রহে প্রত্যক্ষভাবে সাহায্য করেছেন

পেপারঃ১২৮ Unified Field Theory of Gravitation and Electricity.Koniglich Preussische AKademie der Wissenschaften(Berlin).Sitzungsberichte (1925), পৃষ্ঠাঃ৪১৪-৪১৯ প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েনসের অধিবেশনে উপস্থাপিত এই পেপারে আইনস্টাইন তাঁর জেনারেল রিলেটিভিটি থিওরির সাথে বৈদ্যুতিক তত্ত্বের সমন্বয় সাধন করার চেষ্টা করেন

পেপারঃ১২৯ The Electron and Unified Field Theory. Physica,সংখ্যা ৫ (১৯২৫),পৃষ্ঠাঃ৩৩০-৩৩৪ আইনস্টাইন একটি সমন্বিত তত্ত্বের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তাঁর জেনারেল রিলেটিভিটি থিওরিতে ইলেকট্রোম্যাগনেটিক ফোর্স ছাড়া বাকি সবকিছুকে মোটামুটি সমন্বিত করতে পেরেছেন এই পেপারে তিনি ইলেকট্রনের গতিকে জেনারেল রিলেটিভিটিতে দেখতে চেয়েছেন

পেপারঃ১৩০ Quantum Theory of Ideal Gases. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (phys-math.Klasse) (Berlin).Sitzungsberichte (১৯২৫), পৃষ্ঠাঃ১৮-২৫ এ পেপারে আইনস্টাইন সত্যেন্দ্রনাথ বসুর এক পরমাণুক আদর্শ গ্যাস সংক্রান্ত গবেষণার উন্নতি সাধন করে বোস-আইনস্টাইন কন্ডেনসেশান স্টেট প্রতিষ্ঠা করেন এবং এখান থেকে বস্তুকণার তরঙ্গধর্মের পুনরাবিষ্কার করেন

পেপারঃ১৩১ Eddingtons Theory and the Hamiltonian Principle. Appendix to German edition of A.S.Eddington,The Theory of Relativity in Mathematical Perspective,বার্লিন (১৯২৫) থিওরি অব রিলেটিভিটির ওপর এডিংটনের বিখ্যাত বই দি থিওরি অব রিলেটিভিটি ইন ম্যাথম্যাথিক্যাল পারস্পেক্টিভ এর অ্যাপেন্ডিক্সে আইনস্টাইনের এ প্রবন্ধটি প্রকাশিত হয় এডিংটনের তত্ত্ব ও হ্যামিলটনের নীতি নিয়ে আলোচনা করেছেন আইনস্টাইন

১৯২৬
পদার্থবিজ্ঞানে আইনস্টাইনের মৌলিক গবেষণা আস্তে আস্তে কমে আসতে শুরু করেছে যদিও তিনি মাঝে মাঝে কিছু গবেষণাপত্র প্রকাশ করছেন, তা তাঁর আগের কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট রচনা আইনস্টাইনের উজ্জ্বল ব্যক্তিত্ব ও বিশ্বব্যাপী তাঁর খ্যাতির কারণে তিনি জীবন্ত কিংবদন্তিতে পরিণত হতে চলেছেন এবছর রয়েল এস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটি আইনস্টাইনকে স্বর্ণপদক প্রদান করে সোভিয়েত ইউনিয়নের একাডেমি অব সায়েন্স আইনস্টাইনকে একাডেমির সম্মানিত সদস্যপদ দেয়

জার্মানিতে হিটলার নাৎসি পার্টির যুব সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন দেশের যুবকদের ফ্যাসিবাদে দীক্ষিত করার পাশাপাশি তাদের হাতে অস্ত্র তুলে দেয়া হয় জার্মানি লিগ অব নেশানস এর সদস্যপদ পায় পল জোসেফ গোয়েবলস (Paul Joseph Goebbels)বার্লিনের নাৎসি পার্টির নেতৃত্ব হাতে নেন

প্রকাশনা
এবছর প্রকাশিত আইনস্টাইনের তিনটি উল্লেখযোগ্য রচনাঃ

পেপারঃ১৩২ On the Cause of the Formation of Meanders in the Courses of Rivers. Naturwissenschaften, সংখ্যা ১৪ (১৯২৬), পৃষ্ঠাঃ২২৩-২৩৪ এই পেপারটি প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের মিটিং এ উপস্থাপন করা হয় জানুয়ারির সাত তারিখে পরে তা পেপার আকারে প্রকাশিত হয়েছে জার্মান থেকে ইংরেজিতে অনুবাদ করে প্রকাশ করা হয়েছে আরো পরে ১৯৩৪ সালে দি ওয়ার্লড এজ আই সি ইট বইতে ও ১৯৫৪ সালে প্রকাশিত আইডিয়াল এন্ড ওপিনিয়নস বইতে এ পেপারটি আইনস্টাইনের একটু ভিন্নরকম গবেষণাপত্র পৃথিবীর নদীগুলোর পাড় ভাঙার সময় দেখা যায় উত্তর গোলার্ধের নদীগুলোর ডান পাড় ভাঙে, কিন্তু দক্ষিণ গোলার্ধের নদীর ভাঙে উত্তর গোলার্ধের বিপরীত পাড় এরকম কেন হয় তা নিয়ে গবেষণা করেছেন এমন কাউকে না পেয়ে আইনস্টাইন নিজেই একটু গবেষণা করলেন এব্যাপারে

পেপারঃ১৩৩ Suggestion for an Experiment on the Nature of the Elementary Radiation Emission Process.Naturwissenschaften, সংখ্যা ১৪ (১৯২৬), পৃষ্ঠাঃ৩০০-৩০১। বিকিরণ পদ্ধতি পরীক্ষা করার জন্য একটি সম্ভাব্য পরীক্ষণের বর্ণনা দেয়া হয়েছে এ গবেষণাপত্রে।

পেপারঃ১৩৪ Interference Characteristics of Light Emitted by Canal Rays. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin). Sitzungsberichte (১৯২৬), পৃষ্ঠাঃ৩৩৪-৩৪০ প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের অধিবেশনে উপস্থাপিত এই পেপারে আইনস্টাইন আলোক নির্গমনের কিছু বিশেষ ধর্মের ব্যাখ্যা দিয়েছেন

১৯২৭
আইনস্টাইনের তেইশ বছর বয়সী ছেলে হ্যান্স  আলবার্ট জুরিখের পলিটেকনিক থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেন আইনস্টাইনের সাথে হ্যানসের সম্পর্ক খুব একটা ভালো নয় মায়ের কাছ থেকে দূরে সরে যাওয়ার কারণে বাবাকে কিছুতেই ক্ষমা করতে পারেননি হ্যান্স আর আইনস্টাইন এখনও ছেলের ওপর নিজের ইচ্ছে অনিচ্ছে চাপিয়ে দিতে চান হ্যানসের ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াটাকে পছন্দ করেননি আইনস্টাইন এখন পাস করার পর হ্যানস বিয়ে করতে চাচ্ছে ফ্রেইডা নেচকে একথা শুনে আইনস্টাইন সোজা জানিয়ে দিলেন যে হ্যান্সের এ বিয়েতে তাঁর মত নেই কারণ কী? ফ্রেইডা হ্যান্সের চেয়ে নয় বছরের বড় আইনস্টাইন নিজে দুবার বিয়ে করেছেন-তাঁর দুই স্ত্রীই তাঁর চেয়ে বয়সে বড় এখন ছেলে যখন সেরকম একটা ব্যাপার করতে যাচ্ছে, আইনস্টাইন তা মেনে নিতে পারছেন না আইনস্টাইন যুক্তি দেখাচ্ছেন ফ্রেইডা শুধু বয়সে বড় তাই নয়-অসম্ভব বেঁটে আইনস্টাইন খবর নিয়ে জেনেছেন ফ্রেইডার মা মানসিক রোগী এটাও বিয়ের পক্ষে সহায়ক নয় কারণ আইনস্টাইন দেখেছেন মিলেইভার বোন জোরকার মধ্যে মানসিক রোগ থাকার কারণে এডোয়ার্ডের মধ্যেও সেরকম মানসিক অসুস্থতার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে তিনি চিন্তা করছেন ফ্রেইডার সাথে বিয়ে হলে ছেলেমেয়ে যদি হয় তারা পাগল বা বামন কিংবা পাগল ও বামন হবার সম্ভাবনাই বেশি আইনস্টাইন জুরিখের পলিটেকনিকে তাঁর যত বন্ধু প্রফেসর আছেন, সবাইকে অনুরোধ করলেন হ্যানসকে বোঝানোর জন্য কিন্তু কোন কাজ হলো না হ্যানস তাঁর বাবা আইনস্টাইনের মতই জেদি মিলেইভার সাথে বিয়েতে আইনস্টাইনের মা-বাবা অমত করায় আইনস্টাইন বলেছিলেন, তাঁদের সারা শরীরে যে জেদ আছে, তার চেয়ে বেশি জেদ আছে আমার হাতের একটি আঙুলে এখন দেখা যাচ্ছে আইনস্টাইনের জেদের চেয়েও বেশি তাঁর ছেলের জেদ 
আইনস্টাইন ও মিলেইভার অমত সত্ত্বেও মে মাসের সাত তারিখে বিয়ে হয়ে গেলো হ্যান্স আর ফ্রেইডার 

আইনস্টাইনের মা যখন মিলেইভাকে মেনে নিতে চাননি-তখন মিলেইভার মনে হয়েছিলো আইনস্টাইনের মা একজন হৃদয়হীন শয়তান কিন্তু এখন নিজের বেলায় মিলেইভা আইনস্টাইনের মায়ের মতই আচরণ করতে শুরু করলেন মিলেইভা ফ্রেইডাকে মন থেকে মেনে নিতে পারলেন না মিলেইভা মনে করেন ফ্রেইডা হ্যান্সের উপযুক্ত নয় হ্যান্সের বিয়ের একবছর পর মিলেইভা তাঁর একবন্ধুর কাছে লেখা চিঠিতে ফ্রেইডা প্রসঙ্গে লিখেছেন, এই একবছরের মধ্যে হ্যান্সের অবস্থা যে কী খারাপ হয়েছে তার বৌ তো তার সেবাযত্ন করেই না সে মহিলা শুধু নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে অথচ ফ্রেইডা খুব চমৎকার হাসিখুশি স্মার্ট মেয়ে

বিয়ে হয়ে যাবার পরেও আইনস্টাইন হাল ছেড়ে দেননি তিনি হ্যানসকে পরামর্শ দিলেন যেন সন্তান জন্মদানে বিরত থাকে কিন্তু আইনস্টাইনের হাস্যকর পরামর্শ কোন গুরুত্ব পায়নি হ্যান্স ও ফ্রেইডার কাছে তাঁদের তিনটি ছেলে হয়- ডেভিড,ক্ল্যাউস ও বার্নহার্ড ডেভিড ও ক্ল্যাউস শৈশবেই মারা যায় ১৯৪১ সালে তাঁরা একটি কন্যাসন্তান দত্তক নেনে মেয়েটির নাম রাখা হয় ইভলিন

মে মাসের শেষের দিকে জার্মানির স্টকমার্কেটে ধ্বস নামে জার্মানির অর্থনীতি পুরোপুরি ভেঙে পড়ে
সেপ্টেম্বরে ব্রাসেলস-এ অনুষ্ঠিত হলো সোলভে কংগ্রেস এখানে আইনস্টাইন ও নিলস বোরের মধ্যে কোয়ান্টাম মেকানিক্সের ভিত্তি নিয়ে মতবিরোধ দেখা দিলো কোয়ান্টাম মেকানিক্স নিয়ে আইনস্টাইনের এ মতবিরোধ কোনদিনই মেটেনিকোয়ান্টাম মেকানিক্সের সামর্থ্যকে আইনস্টাইন স্বীকার করেন সেকারণেই তিনি হাইজেনবার্গ ও শ্রোডিংগারকে নোবেল পুরষ্কারের জন্য মনোনয়ন দিয়েছেন কিন্তু কোয়ান্টাম মেকানিক্স কোন সমস্যার সুনির্দিষ্ট সমাধান না দিয়ে যে সম্ভাবনার কথা বলে তাতেই আইনস্টাইনের আপত্তি আইনস্টাইন মনে করেন, প্রকৃতি রহস্যময় হলেও প্রকৃতির কাজ কিন্তু সুনির্দিষ্ট

নভেম্বরে আইনস্টাইন পদার্থবিজ্ঞানী ও উদ্ভাবক লিও শিলার্ডের সাথে যৌথভাবে একটি রেফ্রিজারেটরের প্যাটেন্টের দরখাস্ত করেন নতুন ধরণের এই রেফ্রিজারেটরে ঠান্ডা করার জন্য আইনস্টাইন ও শিলার্ডের তৈরি একটি পাম্প ব্যবহার করা হয়েছে-যা আইনস্টাইন-শিলার্ড পাম্প নামে পরিচিত তখনকার প্রচলিত রেফ্রিজারেটরগুলো প্রচন্ড শব্দ করতো আর প্রায় সময়েই কুলার থেকে বিষাক্ত গ্যাস বেরিয়ে ব্যবহারকারীকে বিপদে ফেলতো আইনস্টাইন ও শিলার্ড এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারে এরকম একটি রেফ্রিজারেটরের ডিজাইন করে তা বিক্রি করে দেন ইলেকট্রোলাক্স কোম্পানিকে এরপর আরো একটি ডিজাইন করেন তাঁরা-সেটিও কিনে নেয় ইলেকট্রোলাক্স কোম্পানি এরপর আরো উন্নত একটি ডিজাইন তৈরি করলে তা কিনে নেয় জেনারেল ইলেকট্রিকের জার্মান ডিভিশান, --জি সব মিলিয়ে পাঁচটি ডিজাইন তৈরি করেন আইনস্টাইন ও শিলার্ড কিন্তু ১৯৩২ সালে এধরণের রেফ্রিজারেটর তৈরি বন্ধ হয়ে যায় কারণ ততদিনে ফ্রেয়ন গ্যাস আবিষ্কৃত হয়ে গেছে যা রেফ্রিজারেটর শিল্পের ব্যাপক পরিবর্তন ঘটাতে সাহায্য করে আইনস্টাইন শিলার্ডের সাথে সাত বছর বিভিন্ন বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম ডিজাইন করেছেন আইনস্টাইন-শিলার্ড পাম্প এখন ব্যবহৃত হয় নিউক্লিয়ার রিঅ্যাক্টর ঠান্ডা রাখার জন্য লিকুইড সোডিয়াম প্রবাহিত করার কাজে

হাঙ্গেরিয়ান নাগরিক লিও শিলার্ড অনেকরকম যন্ত্রপাতি ডিজাইন করেছেন নিউক্লিয়ার ফিজিক্স,থার্মোডায়নামিক্স, এটমিক এনার্জি,মলিকিউলার বায়োলজিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন শিলার্ড তাঁর ধারণা ও ডিজাইন থেকে তৈরি হয়েছে সাইক্লোট্রন,লিনিয়ার একসিলারেটর,ইলেকট্রন মাইক্রোস্কোপ অর্থনৈতিক মন্দা ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে শিলার্ড তাঁর কাজ আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেননি পরে অনেকেই তাঁর ধারণা ও ডিজাইনের সম্প্রসারণ করে বিখ্যাত হয়ে গেছেন,অনেকে নোবেল পুরষ্কারও পেয়েছেন

প্রকাশনা
এবছর প্রকাশিত আইনস্টাইনের উল্লেখযোগ্য ছয়টি রচনাঃ

পেপারঃ১৩৫ On Kaluzas Theory on the Connection between Gravitation and Electricity. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin).Sitzungsberichte (১৯২৭),পৃষ্ঠাঃ২৩-৩৫ কালুজা আইনস্টাইনের থিওরি অব গ্র্যাভিটির সাথে ম্যাক্সওয়েলের তড়িৎচুম্বকীয় তত্ত্বের সমন্বয় সাধন করার চেষ্টা করেন একটি পঞ্চম মাত্রার ধারণার মাধ্যমে গণিতবিদ অস্কার ক্লেইনের সাথে কাজ করে কালুজা কালুজা-ক্লেইন ক্ষেত্রসমীকরণ প্রতিষ্ঠা করেন আইনস্টাইন এ গবেষণাপত্রে কালুজার সমীকরণের ওপর আলোচনা করেন

পেপারঃ১৩৬ Effect of Earths Motion on the Velocity of Light Relative to Earth. Forschungen und Fortschritte,সংখ্যা ৩(১৯২৭), পৃষ্ঠাঃ৩৬-৩৭ এই গবেষণাপত্রে আইনস্টাইন আলোর গতির ওপর পৃথিবীর গতির প্রভাব ব্যাখ্যা করেন আপেক্ষিকতার তত্ত্ব প্রয়োগ করা হয়েছে এই পেপারে

পেপারঃ১৩৭ Formal Relationship of the Riemann Curvature Tensor to the Field Equations of Gravitation. Mathematische Annalen,সংখ্যা ৯৯(১৯২৭),পৃষ্ঠাঃ৯৯-১০৩ এই গবেষণাপত্রে আইনস্টাইন তাঁর জেনারেল থিওরিতে ব্যবহৃত ক্ষেত্রসমীকরণগুলোর সাথে রাইম্যান টেনসরের সম্পর্ক আলোচনা করেন

পেপারঃ১৩৮ Newtons Mechanics and Its Influence on the Shaping of Theoretical Physics.Naturwissenschaften,সংখ্যা ১৫ (১৯২৭), পৃষ্ঠাঃ২৭৩-২৭৬ নিউটনের মৃত্যুর দ্বিশতবার্ষিকী উপলক্ষে আইনস্টাইন এ প্রবন্ধটি লেখেন এ প্রবন্ধে আইনস্টাইন পদার্থবিজ্ঞানের ক্রমবিকাশ-গ্রিক থেকে গ্যালিলিও, গ্যালিলিও থেকে নিউটন, নিউটন থেকে বর্তমান কালের তত্ত্বীয় পদার্থবিজ্ঞানের ধারাবাহিকতায় নিউটনের অবদান ও প্রভাবের কথা আলোচনা করেন

পেপারঃ১৩৯ Issac Newton. Letter to the Royal Society on the two-hundredth anniversary of Newtons death.Nature,সংখ্যা ১১৯(১৯২৭),পৃষ্ঠাঃ৪৬৭ স্যার আইজাক নিউটনের মৃত্যুর দুইশ বছর পূর্তি উপলক্ষে আইনস্টাইন রয়েল সোসাইটির কাছে একটি চিঠি লেখেন চিঠিটি নেচার পত্রিকায় প্রকাশিত হয় এ চিঠিতে আইনস্টাইন বিট্রিশদের বৈজ্ঞানিক ঐতিহ্যের প্রশংসা করেন বিট্রিশরা প্রতিভার বিকাশে সবসময় পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে যার ফলে মানবতার উৎকর্ষ সাধন সম্ভব হয়েছে আইনস্টাইন বলেন, নিউটনের পরবর্তী কালে তত্ত্বীয় পদার্থবিজ্ঞানের যতটুকু উন্নতি হয়েছে তার প্রায় সবকিছুই হয়েছে নিউটনের ধারণাকে কেন্দ্র করে শুধুমাত্র কোয়ান্টাম তত্ত্বে নিউটনিয়ান মেকানিক্স যথেষ্ট নয়

পেপারঃ১৪০ General Theory of Relativity and the Laws of Motion. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin),Sitzungberichte (1927),পৃষ্ঠাঃ২৩৫-২৪৫ আইনস্টাইন তাঁর জেনারেল থিওরি অব রিলেটিভিটি থেকে গতির সমীকরণগুলো প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করেছেন এ গবেষণাপত্রেতিনি এ ব্যাপারে পুরোপুরি সফল হতে পারেননি তাঁর লক্ষ্য ছিলো একটি মাত্র সমন্বিত তত্ত্ব থেকে পদার্থবিজ্ঞানের সবগুলো তত্ত্ব বের করা

১৯২৮
মার্চে সুইজারল্যান্ডের ড্যাভোসে(Davos) ভ্রমণ করার সময় বরফ ঢাকা রাস্তায় একটি ভারী সুটকেস নিয়ে হাঁটার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শয্যাশায়ী হয়ে পড়েন আইনস্টাইন চারমাস বিছানায় পড়ে থাকতে হয় তাঁকে ডাক্তারের পরামর্শে নুন খাওয়া একেবারেই ছেড়ে দিতে হয়,পাইপ টানাও সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ আইনস্টাইন অনিচ্ছা সত্ত্বেও ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলছেন এলসা তাঁর দেখাশোনা করছেন

বেটি নিউম্যানকে ছাড়িয়ে দেয়ার পর আইনস্টাইনের সেক্রেটারির কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন এলসা নিজে কিন্তু এখন অসুস্থ আইনস্টাইনের শতশত চিঠির উত্তর দিতে গিয়ে এলসা বেশ বিরক্তি বোধ করছেন আইনস্টাইনের জন্য একজন ফুলটাইম সেক্রেটারি না হলে চলছে না আর এলসার এক বান্ধবীর ছোটবোন হেলেন ডূকাসকে নিয়োগ দিলেন এলসা এপ্রিলে আইনস্টাইনের নতুন সেক্রেটারি নিযুক্ত হন হেলেন ডুকাস(Helen Dukas) ছিপছিপে লম্বা ব্যক্তিত্বময়ী হেলেন ডুকাসের সাথে আইনস্টাইনের প্রথম দেখা হয় রোগশয্যায় হেলেন খুব ভয়ে ভয়ে ছিলেন এতবড় বিখ্যাত একজন বিজ্ঞানীর সাথে কীভাবে কাজ করবেন ভেবে পদার্থবিজ্ঞানের কিছুই জানেন না হেলেন কিন্তু প্রথম দিনেই আইনস্টাইনের হাসিখুশি অন্তরঙ্গ ব্যবহারে খুশি হয়ে গেছেন হেলেন প্রথম দিন থেকেই আইনস্টাইনের সমস্ত কাজের দায়িত্ব নিজের হাতে তুলে নেন এরপর আইনস্টাইনের মৃত্যু পর্যন্ত পরিবারের একজন হয়েই ছিলেন হেলেন ডুকাস আইনস্টাইনের মৃত্যুর পর হেলেন ডুকাস প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটির ইনস্টিটিউট অব এডভান্সড স্টাডির আর্কাইভে আইনস্টাইনের ডকুমেন্টস আগলে রাখেন মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আইনস্টাইনের ব্যক্তিগত জীবনের দুর্বলতাগুলো যতদিন পেরেছেন গোপন করে রাখতে চেষ্টা করেছেন হেলেন ডুকাস হেলেন ডুকাস ধরতে গেলে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন আইনস্টাইনকে দেখাশোনা করার কাজে নিজের ব্যক্তিগত সুখদুঃখের কথা ভাবার সময়ও পাননি হেলেন, বিয়েও করেননি

এবছর জার্মান লিগ অব হিউম্যান রাইটস-এর বোর্ড অব ডিরেক্টরস এর সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আইনস্টাইন শারীরিক অসুস্থতার জন্য প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েন্সের অধিবেশনে যোগ দিতে পারেননি বেশ কয়েকমাস এসময় তাঁর দুটো পেপার উপস্থাপন করেন ম্যাক্স প্ল্যাংক এ দুটো পেপারে আইনস্টাইন একটি সমন্বিত তত্ত্বের আশায় গণিতের কিছু নতুন ধারণা নিয়ে কাজ করেছেন

প্রকাশনা
এবছর প্রকাশিত আইনস্টাইনের তিনটি উল্লেখযোগ্য রচনাঃ

পেপারঃ১৪১ Riemannian Geometry with Preservation of Distant Parallelism. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin).SItzungsberichte (1928),পৃষ্ঠাঃ২১৭-২২১ প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েনসের অধিবেশনে আইনস্টাইনের এ পেপারটি উপস্থাপন করেন ম্যাক্স প্ল্যাংক দূরবর্তী সমান্তরাল বলের ক্ষেত্রে রাইম্যান জিওমেট্রি বিশ্লেষণ করা হয়েছে এ গবেষণাপত্রে

পেপারঃ১৪২ New Possibilities of a Unified Field Theory of Gravitation and Electricity. Koniglich Preussische Akademie der Wissenschaften (Berlin).Sitzungsberichte (১৯২৮), পৃষ্ঠাঃ২২৪-২২৭ আইনস্টাইন অসুস্থ থাকার কারণে প্রুসিয়ান একাডেমি অব সায়েনসের অধিবেশনে যোগ দিতে পারেননি। তাঁর হয়ে এই পেপারটিও উপস্থাপনা করেন ম্যাক্স প্ল্যাংক। ইউনিফায়েড ফিল্ড থিওরি প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে আশাবাদী আইনস্টাইন এ গবেষণাপত্রে অভিকর্ষজ ক্ষেত্রের সাথে বৈদ্যুতিক ক্ষেত্রের সমন্বয়ের নতুন সম্ভাবনা ব্যাখ্যা করেন।

পেপারঃ১৪৩ H.A.Lorentz. Mathematisch-naturwissenschaftliche Blatter, সংখ্যা ২২ (১৯২৮), পৃষ্ঠাঃ২৪-২৫ ডাচ পদার্থবিজ্ঞানী লরেঞ্জের মৃত্যুর পর তাঁর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার লরেঞ্জের স্মৃতিচারণ করেন আইনস্টাইন লরেঞ্জকে তিনি সমকালীন ইতিহাসের সবচেয়ে বিরাট সবচেয়ে মহৎ মানুষদের একজন বলে উল্লেখ করেন

No comments:

Post a Comment

Latest Post

Memories of My Father - Part 4

  This is my first photo taken with my father. At that time, I had just moved up to ninth grade, my sister was studying for her honors, and ...

Popular Posts